অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের মেয়েরা

স্পোর্টস রিপোর্টার :

0
17

ফেভারিটের তকমা নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েই টি ২০ বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব শেষ করল। সেমিফাইনালে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে আগেই পেয়ে যায় টানা চতুর্থবারের মতো টি ২০ বিশ্বকাপের টিকিট। স্কটল্যান্ডের ডান্ডিতে শনিবার ফাইনালে থাইল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সালমা-জাহানারারা। আসরজুড়ে ব্যাট হাতে আলো ছড়ানো সানজিদা ইসলামের অপরাজিত ৭১ রানে ভর করে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ পাঁচ উইকেটে তোলে ১৩০ রান। জবাবে সাত উইকেট হারিয়ে ৬০ রান করতে পারে থাইল্যান্ড। ৭০ রানের বড় জয় নিয়ে শিরোপা উৎসব করেছে সালমারা। ফাইনালে ওঠার সুুবাদে আগেই প্রথমবারের মতো টি ২০ বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে থাইল্যান্ডও।

বাংলাদেশ সেমিফাইনালেই কঠিন পরীক্ষা দিয়ে ফেলেছে। ফাইনালে জয়ের ব্যাপারে আগে থেকেই আত্মবিশ্বাসী ছিল বাংলাদেশ। কাল প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ওপেনিং জুটিতেই সানজিদা ও মুর্শিদা খাতুন ৬৮ রানের জুটি গড়ে তোলেন। মুর্শিদা ৩৪ বলে চারটি চারে ৩৩ করে আউট হন। এরপর দলের বাকিরা ভালো করতে না পারলেও সানজিদা একাই দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। শেষ পর্যন্ত ৬০ বলে ছয় চার ও তিন ছক্কায় ৭১* রানের ঝলমলে একটি ইনিংস খেলেন তিনি। আন্তর্জাতিক টি ২০-তে এটি তার প্রথম ফিফটি। তাতে দেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিক বনে গেলেন সানজিদা। আগের রেকর্ডটি ছিল ফারজানার ৬৬ রান। সেমিফাইনালেও বাংলাদেশকে জিতিয়েছিলেন এই ডানহাতি ব্যাটার। থাইল্যান্ডের পক্ষে নাতায়া বোছাথাম দুটি এবং তিপ্পোস ও লাওমি একটি করে উইকেট নেন।

১৩১ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে থাইল্যান্ডের মাত্র দু’জন দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছাতে পেরেছে। ব্যাটিংয়ে নয় নম্বরে নামা আর পাদুংলেদ সর্বোচ্চ ১৫* রান করেন। দুই স্পিনার নাহিদা আক্তার ও শায়লা শারমিন দুটি করে উইকেট নেন। চার ওভারে মাত্র চার রান দিয়ে একটি উইকেট নেন অধিনায়ক সালমা। উইকেট না পেলেও দুই ওভারে মাত্র তিন রান দেন পেসার জাহানারা আলম। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চে অস্ট্রেলিয়ায় হবে এবারের টি ২০ বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেলবে ‘এ’ গ্রুপে। এই গ্রুপে রয়েছে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত ও শ্রীলংকা। ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here