অভিনেত্রীর ওপর ভুতের আছর!

[ad_1]

ভুত নিয়ে কাণ্ডের শেষ নেই। কেউ ভুতের নাম শুনলেই ভুরু কুচকে তুড়ি মেরে বলেন ‘গালগল্প’। কেউ আবার সমানে বলতে থাকেন ‘ভুত আমার প্রেত, পেত্নি আমার ঝি, রাম-লক্ষণ সাথে আছে, করবি আমার কী?’ বাংলার ভুতের তো আবার নানা নাম- কেউ ব্রহ্মদৈত্য, কেউ আবার মেছো ভুত, মামদো ভুত। তালিকায় রয়েছে শাকচুন্নি থেকে পেত্নির দলও।

ভুত নিয়ে এমন সাত-সতেরো ইতিহাস নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। দীর্ঘদিন ধরে যেটা জিজ্ঞাস্য যে আদৌ কি ‘তেনারা’ রয়েছেন! ভুতেদের অস্তিত্ব নিয়ে বহু জনেই বহু কথা শুনিয়েছেন। খোদ রবীন্দ্রনাথও এই ভুতের নেশা ছাড়তে পারেননি। ‘ক্ষুদিত পাষাণ’-এ একটা কিছু আছের ইঙ্গিত দিলেও রবী-কবি কিন্তু স্পষ্ট করে বলেননি আদৌ ‘তেনারা’ আছেন কি না।

এবার এক সত্যি সত্যি ভুতের দেখা মিলেছে বলে দাবি করা হচ্ছে। কম্বোডিয়া দেখা মিলেছে এই জ্যান্ত ভুতের। রীতিমতো মানুষের শরীর নিয়ে তিনি হাজির বলে দাবি করা হচ্ছে। আসলে কম্বোডিয়ায় একটি বাড়িতে ভুতের সিনেমার শ্যুটিং চলছিল। এক অভিনেত্রী ভুত সেজে শট দিচ্ছিলেন, আচমকাই তিনি ঘরের মেঝেতে বসে পড়েন। শুধু তাই নয় মেঝেতে বসেই তাঁর সেই ভয়াবহ ভুতের মেক-আপ নিয়ে প্রোডাকশনের সকলকে দেখতে থাকেন। এক সহকর্মিনী ওই অভিনেত্রীকে শান্ত করতে গিয়েছিলেন। ব্যাস, এমন মার খেয়েছেন ভুতে ভরা করা অভিনেত্রীর কাছে যে তারস্বরে নাকি কাঁদতে থাকেন। কোনও মতে ওই ভুতের খপ্পর থেকে মহিলা কর্মীকে উদ্ধার করা হয়।

গোটা ঘটনাই ভিডিও করা হয়। এতেই দেখা যায় রীতিমতো অস্বাভাবিকভাবে ঘরের মধ্যে বসে রয়েছেন ওই অভিনেত্রী। সমানে বিড়-বিড় করে চলেছেন। শ্যুটিং-এর মাঝে এমন অবস্থা দেখে রীতিমতো ঘাবড়ে গিয়েছেন প্রোডাকশনের বাকি সদস্যরা। কেউই সাহস করে ভুতে পাওয়া অভিনেত্রীর কাছ ঘেঁষতে চাইছেন না। এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ আপলোডও করে দেয়। এপপরই তা ভাইরাল হয়ে ওঠে। জ্যান্ত ভুতের এমন কাণ্ডকারখানায় সকলেই অবাক।

পরে ওই অভিনেত্রী নিজেও দাবি করেন ভুত-এর মেকআপ নেওয়ার পরই তাঁর শরীরে কেমন একটা ঝাঁকুনি দেয়। মনে হচ্ছিল কেউ যে তাঁর শরীরের ভিতরে প্রবেশ করেছে। তাঁর সমস্ত কর্মক্ষমতাও নাকি নিয়ন্ত্রণ করছিল ওই শক্তি। এমনটাই দাবি ওই অভিনেত্রীর। যদিও, আপাতত সুস্থ আছেন ওই অভিনেত্রী। যুক্তিবাদীরা অবশ্য এসবকে ভুতের কাণ্ডকারখানা বলে মানতে রাজি হননি। তাঁদের দাবি ওই অভিনেত্রী সবাইকে বোকা বানিয়েছেন। তিনি আসলে অভিনয় করছিলেন।

[ad_2]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here