উন্নয়ন করতে গিয়ে কি আমরা পরিবেশের ক্ষতি করছি ?

নিজস্ব প্রতিবেদক :

0
246

চট্টগ্রাম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০:উন্নয়নের সাথে পরিবেশ সুরক্ষার প্রশ্নটি অনিবার্য। আমরা দেশের উন্নয়ন চাই তবে তা পরিবেশের সাথে সাংঘর্ষিকভাবে নয়। উপকূলীয় মানুষের টিকে থাকার লড়াইয়ে দেশের পরিবেশ সাংবাদিকতাকে আরো বহুমুখী এবং গতিশীল করতে হবে। এক্ষেত্রে তৃণমূল সাংবাদিকদের আরো যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ দরকার। বাংলাদেশের পরিবেশ সাংবাদিকতার সামনে এটি এখন চ্যালেঞ্জ।

“উপকূলে পরিবেশ সাংবাদিকতার সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জসমূহ” শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় বক্তারা এই কথা বলেন। আজ রবিবার (১৬ই ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে কোস্ট ট্রাস্ট এবং বাংলাদেশের পরিবেশ সাংবাদিকদের সংগঠন জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক অফ বেঙ্গল ডেল্টা (জেএনবিডি)। এতে চট্টগ্রাম ও পার্শবর্তী পার্বত্য জেলাথেকে সাংবাদিক, গবেষক এবং বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরাঅংশ নেন।

সভার শুরুতে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাজীব নন্দী এবং কোস্ট ট্রাস্টের যুগ্ম পরিচালক বরকত উল্লাহ মারুফ। বরকত উল্লাহ মারুফ তার উপস্থাপনায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংক্রান্ত আলোচিত ও জরুরি বিষয় তুলে ধরেন এবং রাজীব নন্দী তুলে ধরেন পরিবেশ সাংবাদিকদের সামনে বিশেষ করে উপকূলীয় অঞ্চলে কী কী প্রতিবন্ধকতা ও সুবিধা রয়েছে।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি আলী আব্বাসের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভাটি সঞ্চালনা করেন এটিএন বাংলার সিনিয়র নিউজ এডিটর মানস ঘোষ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন। সূচনা বক্তব্য দেন কোস্ট ট্রাস্টের পরিচালক মোস্তফা কামাল আকন্দ এবং বক্তব্য রাখেন ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ডঃ সিকান্দার খান, চবির প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ও হালদা রিসার্চ ল্যাবরেটরির সমন্বয়ক ডঃ মনজুরুল কিবরিয়া, মানবাধিকার কর্মী এবং এডাবের চট্টগ্রাম সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, গণসংহতি আন্দোলনের চট্টগ্রাম জেলা আহ্বায়ক হাসান মারুফ রুমী প্রমুখ।

প্রধান অতিথি আবুল মোমেন বলেন, পৃথিবীর বৃহত্তম বদ্বীপ বাংলাদেশের মানুষের মন গড়ে উঠেছে এই ভূমির জল মাটি বাতাসকে অবলম্বন করে। তাই মানুষের টিকে থাকা এবং ভালো থাকা খারাপ থাকা নির্ভর করে পরিবেশ কতটুকু ভালো খারাপ আছে তার ওপর। পরিবেশ ভালো রাখার জন্য অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা রাখবে পরিবেশ সাংবাদিকতা। তিনি আরো বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের দরকার, কিন্তু সেটা নদীর কী কী ক্ষতি করবে তাও আমাদের ভাব্যতে হবে।

ডঃ সিকান্দার খান বলেন, বাংলাদেশের প্রকৃতিকে না বুঝে উন্নয়ন করতে গিয়ে আমরা সড়ক বানিয়েছি, নদী পথ মেরে ফেলেছি। অথচ, আমাদের সংস্কৃতির সাথে নদীপথই সবচেয়ে মানানসই।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি জনাব আলী আব্বাস বলেন, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বয়স ৪০ বছর অথচ এখনও একটা ডাম্পিং গ্রাউন্ড নাই। আমরা কোথায় ময়লা ফেলব ? কিভাবে ময়লা রিসাইকেল করব ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here