ঢাকা মেডিকেলের ১ মাসে খাবারের বিল যে ভাবে হলো ২০ কোটি টাকা

যমুনা ডেস্ক :

0
320

ঢাকা মেডিকেলে ১ মাসে কোভিড ইউনিটে দায়িত্ব পালনকারী ২০০ জন ডাক্তারের খাবারের বিল ঠিকাদার দেখিয়েছেন ২০ কোটি টাকা।

১ মাসে ২০ কোটি টাকা তে প্রতি ডাক্তারের ভাগে পরে ১০ লাখ টাকা। সেই হিসেবে প্রতিদিন খাবার খরচ পরে ৩৩,৩৩৩ টাকা।
সে হিসেবে প্রতিবেলায় ১১,১১১

২ পিস রুটির মূল্য ৭,০০০ টাকা
১ টা কলার মূল্য ২,০০০ টাকা
১ টি ডিমের মূল্য ১,০০০ টাকা
১ টি ওয়ান টাইম প্লেটের মূল্য ১,০০০ টাকা
১ টি টিস্যুর মূল্য ১১১ টাকা

এইটা দেখার পর ডাক্তারদের মনের অবস্থা কেমন হতে পারে?

এদেশ কিভাবে সোনার বাংলা হবে?
নাকি অলরেডি হয়ে গিয়েছে? বিষয়টি নিয়ে
সাম্প্রতিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বইছে আলোচনার ঝড়।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে কভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের সেবাদানকারী চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা কী করে হয়, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত সোমবার জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, বিরোধীদলীয় উপনেতা ঠিকই বলেছেন–এক মাসে ২০ কোটি টাকা খাবার বিল, অস্বাভাবিকই মনে হচ্ছে। এটি আমরা পরীক্ষা করে দেখছি। এত অস্বাভাবিক কেন হবে? যদি কোনো অনিয়ম হয় আমরা ব্যবস্থা নেব।

এর আগে আলোচনায় অংশ নিয়ে সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের হাসপাতালের খাবারের বিল নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কভিড-১৯ চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সম্পূর্ণ সরকারি খরচে হোটেলে থাকা-খাওয়া ও যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে থাকা-খাওয়ায় একমাত্র ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিসাব অস্বাভাবিক মনে হচ্ছে বলে বিরোধীদলীয় উপনেতা যেটি বলেছেন, এটি স্বাভাবিকভাবেই অস্বাভাবিক মনে হয়। আমরা তদন্ত করে দেখছি, এত অস্বাভাবিক কেন হলো? এখানে কোনো অনিয়ম হলে আমরা তার ব্যবস্থা নেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here