নান্দাইলে প্রতিপক্ষের আঘাতে কলেজ ছাত্র মৃত্যুশঙ্কায়॥ আহত আরো ১০

0
27

ময়মনসিংহের নান্দাইলে মাছ ধরার জের মারামারির ঘটনায় আসাদুল্লাহ (১৯) নামে এক কলেজ ছাত্র গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যু শঙ্কায় রয়েছে। বর্তমানে সে ঢাকায় বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছে। যেকোন সময় তাঁর মৃত্যুবরন করতে পারে। এছাড়া উক্ত ঘটনায় আরো ১০ জনেরও বেশি আহত হয়েছে। এমন ঘটনাটি ঘটেছে নান্দাইল উপজেলার ৫নং গাংগাইল ইউনিয়নের অরণ্যপাশা গ্রামে। স্থানীয় ও একাধিক সূত্রে জানাগেছে, আসাদুল্লাহ নান্দাইল উপজেলার স্থানীয় একটি কলেজের একাদশ শ্রেণীর প্রথম বর্ষের ছাত্র। আসাদুল্লাহ (১৯) অরণ্যপাশা গ্রামের মঞ্জিল মিয়ার পুত্র। গত শনিবার (১৮ই জুন) বেলা ২টার দিকে আসাদুল্লাহ’র ছোট ভাই আহাদ (১৪) বাড়ির পাশে বর্ষার পানিতে থৈ থম্মুর ধান ক্ষেতে মাছ ধরার যন্ত্র বাগা পেতে রাখে। পরে আসাদুল্লাহ’র চাচাতো ভাই জূনাঈদ (১৪) সে বাগা তুলে নষ্ট করে ফেলেছে বলে অভিযোগ তুলে ছোট ভাই আহাদ। তখন আহাদ ও জুনাঈদের মধ্যে মারামারি হয়। জুনাঈদ আসাদুল্লাহ’র চাচা নবী হোসেনের পুত্র। পরবর্তীতে মারামারি বিষয়টি পরিবারের লোকজন জানতে পেরে উভয় পক্ষ তমুল বাকবিতকন্ডায় জড়িয়ে পড়ে ও মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে মঞ্জিল মিয়ার পুত্র আসাদুল্লাহ প্রতিপক্ষ সুজন মিয়ার দা’র কোপে মাথায় ও বুকে গুরুতর আহত এবং শাবলের আঘাতে আসাদুল্লাহ’র মুখের দাতগুলো ভেঙ্গে দেয় প্রতিপক্ষরা। এছাড়া নবী হোসেন, নবী হোসেনর পুত্র সুজন, রিপন, রুবেল, ও তাঁর পরিবারের লোকজন আসাদুল্লাহ’র পরিবার তথা মঞ্জিল মিয়ার পরিবারের উপর দেশীয় অস্ত্র সহ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করে আসাদুল্লাহ’র পরিবার। এছাড়া উক্ত ঘটনায় আসাদুল্লাহ’র ভাই মাসুদ (১৭), আহাদ (১৪), আসাদুল্লাহ’র চাচা শহিদুল্লাহ, দাদী হাজেরা খাতুন, মঞ্জিল মিয়ার স্ত্রী রোমেলা খাতুন সহ প্রতিপক্ষের আরো কয়েকজন আহত হয়। বর্তমানে তারা নান্দাইল উপজেলা সদর হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে উক্ত ঘটনায় এপর্যন্ত থানায় কোন ধরনের লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। এদিকে নবী হোসেনের পরিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ঘটনার পর থেকে তাদের কাউকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নাজিম উদ্দিন মারামারি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। তবে বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক। ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট আসাদুজ্জামান নয়ন বিষয়টির প্রতি খুবই দুঃখ প্রকাশ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here