প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে ইন্টারনেটে ধীরগতি

0
183


চলমান এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে কিছু সময়ের জন্য ইন্টারনেটের গতি কমিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বাকী পরীক্ষার দিনগুলোতে সকালে আড়াই ঘণ্টা ইন্টারনেটের গতি কমিয়ে রাখতে সব আইএসপি ও মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশনা দিয়েছে টেলিযোগাযোগ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

রবিবার সারাদেশে রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত (৩০ মিনিট) ইন্টারনেট সেবা ব্যাহত হয়েছে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) নিদের্শনা অনুযায়ী এ ৩০ মিনিট ইন্টারনেট সংযোগে ব্যান্ডউইথ কমিয়ে দেয় সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। ফলে এ ধীর গতি সমস্যার সৃষ্টি হয় সারাদেশে।

বিটিআরসি সূত্রে জানা যায়, চলমান এসএসসি পরীক্ষার সময় সরকারি নির্দেশনা অনুসারে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নির্দিষ্ট কিছু সময়ে ইন্টারনেটের গতি ২৫ কেবিপিএস করতে মোবাইল ফোন অপারেটর ও ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে রবিবার চিঠি দেয়া হয়। এরই অংশ হিসেবে পরীক্ষামূলকভাবে রবিবার রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ইন্টারনেটের গতি কমানো হয়।

এছাড়া ১২, ১৩, ১৫ ও ১৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা, ১৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা এবং দুপুর ১২টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত দেশজুড়ে ইন্টারনেটের ব্যান্ডউইথ কমিয়ে রাখা হবে।

একইভাবে ১৯, ২০, ২২ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সারাদেশে ইন্টারনেটের ব্যান্ডউইথ কমিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

নানাভাবে চেষ্টা করেও সরকার স্কুল কলেজের পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে পারছে না। পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষায় প্রায় প্রতিটি বিষয়ে প্রশ্ন ফাঁস হওয়ার পর এবার এসএসসিতে আধা ঘণ্টা আগে পরীক্ষার্থীদের হলে থাকা বাধ্যতামূলক করার পাশাপাশি প্রশ্নের প্যাকেট খোলার ক্ষেত্রে বিশেষ নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়।

কিন্তু তারপরও প্রতিটি পরীক্ষার প্রশ্নই ফাঁস হওয়ার পর ফেইসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে চলে আসছে পরীক্ষা শুরুর এক থেকে দেড় ঘণ্টা আগে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here