বিএনপিতে কি এতই দৈন্যদশা, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

[ad_1]

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপিতে এমন কী একজন নেতাও নাই যাকে ভারপ্রাপ্ত করা গেল না। দুর্নীতির দায়ে যিনি সাজাপ্রাপ্ত আসামি, রাজনীতি করবেন না বলে মুচলেকা দিয়ে যিনি দেশ ছেড়ে চলে গেছেন তাকেই করতে হলো দলের চেয়ারপারসন। সোমবার গণভবনে এক সাংবাদিকের প্রশ্নে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায় নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আদালত রায় দিয়েছে। আমাদের কিছু করার নেই। কিন্তু বিএনপি সব দোষ দেয় সরকারের ওপরে।

বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা পরিবর্তনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি গঠনতন্ত্রের ধার ধারে না। সব ক্ষমতা চেয়ারপারসনের হাতে। ৭ নম্বর ধারাটা ভালো একটা ধারা ছিল যাতে বলা হয়েছে, সাজাপ্রাপ্ত আসামি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না। খালেদায় জিয়ার রায়ের আগেই বিএনপি সেই ধারা পরিবর্তন করে নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে।

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন সময়মতো হবে। জনগণ ভোট দেবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে অনেকে অনেক কথা বলেন। কিন্তু বিশেষ লোকের ক্ষেত্রে দুর্নীতি হলে অনেকে এটা নিয়ে কোনো কথা বলেন না। তিনি বলেন, বিএনপির গঠনতন্ত্রে সব ক্ষমতা চেয়ারপারসনের। আমাদের (আওয়ামী লীগের) গঠনতন্ত্রে কিন্তু তা নেই। এখানে সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী হলো নির্বাহী কমিটি ও প্রেসিডিয়াম সদস্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ এম মাহমুদ আলী, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ছাড়াও বিভিন্ন মিডিয়ার সিনিয়র সাংবাদিক, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

[ad_2]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here