ময়মনসিংহে মেডিকেল কলেজে মঙ্গলবার করোনা শনাক্তের কাজ শুরু

এম এ আজিজ, স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ

0
204

ঢাকা ও চট্রগ্রামের পর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও সন্দেহভাজন রোগীদের শনাক্ত করতে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে‘পিসিআর’ ল্যাব স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অধ্য প্রফেসর চিত্ত রঞ্জন দেবনাথ জানিয়েছেন ৩১ মার্চ মঙ্গলবার থেকে এটি চালুর মাধ্যমে করোনা ভাইরাস শনাক্ত করণের পরীার কাজ শুরু করা হবে।

ময়মনসিংহ বিভাগের করোনা আক্তান্ত রোগিদের চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহের সূর্যকান্ত হাসাতালে (এসকে হাসপাতাল) পাঁচ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়াও জেলার মুক্তাগাছায় শারীর শিা কলেজে একশত আইশোলেশন বেড, সদরের পরানগঞ্জ হাসপাতাল ও সূর্যকান্ত হাসপাতালে ৬০ শয্যা ও কারিগরি প্রশিন কলেজে (টিটিসি) ৫০ শয্যা এবং বিভিন্ন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ৫ শয্যার বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পিসিআর ল্যাবটি স্থাপনে ইতিমধ্যেই ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ টিমের সদস্যরা প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টে স্থাপন করেছেন। ময়মনসিংহ বিভাগের মানুষ উপকৃত হবে এখন আর করোনা ভাইরাস পরীার জন্য কষ্ট করে ঢাকায় যেতে হবে না।

এক মার্চ মঙ্গলবার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ভাইরাস পরীা করা হবে বলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অধ্য প্রফেসর চিত্ত রঞ্জন দেবনাথ জানিয়েছেন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রশিন প্রাপ্ত সহকারী অধ্যাপক সালমা আহমেদ ও নাজিয়া হক বলেন, করোনা ভাইরাস ছোয়াচে ভাইরাস, পরীার কাজ খুবই কষ্টের তবু জীবনের ঝুকি নিয়ে সাধারন মানুষের জীবন রার জন্য চিকিৎসা করবে বলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের করোনা ভাইরাসে প্রশিন প্রাপ্ত দুইজন (মহিলা) চিকিৎসক জানিয়েছেন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের উপাধ্য অধ্যাপক ডাঃ আকতারুন নেসা জানিয়েছেন, যাদেরকে সন্দেহ করা হবে শুধু তাদেরই নমুনা সংগ্রহ করে করোনা ভাইরাস আছে কি না পরীা করা হবে।
কষ্ট করে আর ঢাকায় ফোন করতে হবে না, ময়মনসিংহে আলাদা টিম গঠন করা হবে, এই টিম আপনার ফোন পেয়েই এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার চিকিৎসকরা সরাসরি যোগ করলেই টিম নমুনা সংগ্রহের জন্য পৌছে যাবে। করোনা ভাইরাস সন্দেহভাজন রোগীর কাছ থেকে তিন স্তরের নমুনা সংগ্রহের পর করোনা ভাইরাসের রিপোর্ট পেতে ২/৩ ঘন্টা সময় লাগবে বলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রশিন প্রাপ্ত সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার অরূপ ইসলাম জানিয়েছেন।

বিএমএ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক এ.এইচ তারা গোলন্দাজ জানান, করোনা রোগিদের চিকিৎসায় নিয়োজিত ডাক্তার, নার্সসহ সকলের ব্যক্তি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। ঢাকা ও চট্রগ্রামের পর এটিই হবে দেশের ৬ষ্ঠ পিসিআর ল্যাব। ল্যাবটিতে পরীা শুরু হলে করোনা ভাইরাস সনাক্তে ময়মনসিংহ বিভাগ তথা বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের মানুষের সুবিধা অনেকাংশে বেড়ে যাবে বলে চিকিৎসক ও সাধারন মানুষের প্রত্যাশা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here