শাহজাদপুরে এখনো শুরু হয়নি সরকারি ভাবে ধান ক্রয়

এম এ হান্নান, শাহজাদপুর(সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

0
156

প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে গত ২৫/০৪/২০১৯ ইং তারিখ থেকে সরকারিভাবে সরাসরি ধান ক্রয়ের নির্দেশনা থাকলেও জেলার শাহজাদপুর উপজেলায় এখনও শুরু হয়নি সরকারিভাবে ধান ক্রয়। তবে, অতি সত্বর এ ক্রয় শুরু হবে বলে উপজেলা নির্বাহী অফিস এবং উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ অফিস সূত্রে জানা গেছে। সূত্রে জানা যায়, এ বছর সরকার প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে প্রতি মেট্রিক টন ধান ২৬ হাজার টাকা মূল্য নির্ধারণ করে ক্রয় করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে। সে আলোকে শাহজাদপুর উপজেলা থেকে ৭শ’ ৬৪ মেট্রিক টন ধান ক্রয়ের বরাদ্দ আছে

গত ০৬/০৫/২০১৯ ইং তারিখে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এক সভায় রেজ্যুলেশনের ভিত্তিতে এক চিঠির মাধ্যমে শাহজাদপুর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ অফিসকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। সরকারিভাবে এ ক্রয়ের জন্য উপজেলা পর্যায়ে ‘খাদ্য সংগ্রহ মনিটরিং কমিটি’ নামে একটি কমিটি আছে। ওই কমিটির প্রধান উপদেষ্টা হলেন স্থানীয় সাংসদ, সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সদস্য সচিব হলেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা । উক্ত কমিটির আরেক জন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা। উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে একটি তালিকা তৈরি করা হয়ে থাকে।

যার মধ্যে প্রান্তিক কৃষক ও মহিলা কৃষক প্রথম এবং সর্বোচ্চ প্রাধান্য পাবে। সেই তালিকার মধ্য থেকেই অধিকতর যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি সরকারিভাবে ধান ক্রয়ের নিয়ম রয়েছে। ইতোমধ্যেই সকল বিধি বিধান শেষ হলেও কিছুটা নিম্নাঞ্চল হিসেবে শাহজাদপুরে ধান ক্রয় এখনও শুরু হয়নি বলে সূত্রে জানা গেছে। যদিও পাশের উপজেলা উল্লাপাড়ায় স্থানীয় এমপি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরাসরি মাঠে নেমে ধানের ক্রয়ের মনিটরিং করছেন বলে জানা গেছে।
শাহজাদপুর উপজেলায় ৭ থেকে ১০ দিন আগে থেকেই কোন কোন অঞ্চলে ধান কাটা শুরু হয়েছে বলে ওই অঞ্চলের কৃষকরা দাবি করেছে। তবে, সব অঞ্চলে ধান কাটা এখনও শুরু বা শেষ হয়নি এমন মন্তব্যও অনেকে করেছে। কৃষক ও এলাকার সুধীজনদের বক্তব্য, ১টি পৌরসভা ও ১৩ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত শাহজাদপুর উপজেলাটি একটি বৃহৎ উপজেলা। এ উপজেলা থেকে মাত্র ৭শ’ ৬৪ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করলে এলাকার কৃষকদের তেমন একটি উপকার হবে না। এখান থেকে সরকারিভাবে আরও বেশি ধান ক্রয় করা উচিত। এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা ইয়াসিন আলী জানান, ‘জেলা প্রশাসকের পাঠানো চিঠি আমি পেয়েছি, ধান ক্রয় শুরু করবো।’

অপরদিকে, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হুসেইন খাঁন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি সহ আমাদের কমিটি সবাই স্বচ্ছতার সাথে অতি সত্বর প্রকৃত প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকেই সরাসরি ধান ক্রয় করবো। সরকারি নিদের্শনাও এমনটিই রয়েছে। তাছাড়া, এ ধান ক্রয়ে দ্বিতীয় বা তৃতীয় কোন স্বত্ব ভোগী কোন স্বার্থ লাভের সুযোগ পাবে না এ নিশ্চয়তা আমি দিচ্ছি। প্রকৃত কৃষক নিজেরাই সরাসরি ধান বিক্রি করে সরকারি নির্ধারিত মূল্য হাতে পাবেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘শাহজাদপুরে সব অঞ্চলে ধান কাটা এখনও শুরু হয়নি বলে ধান ক্রয়ও শুরু করা হয়নি।’ তিনি এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের সহযোগিতাও কামনা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here