সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির সিরাজগঞ্জে অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ নবরত্ন মন্দির

রফিকুল ইসলাম সবুজ

0
95

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার হাটিকুমরুলে অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ নবরত্ন মন্দির। ১৭০৪ থেকে ১৭২৮ সালে মধ্যবর্তি সময়ে নবাব মুর্শিদকুলি খানের শ্বাসন অামলে রামনাথ ভাদুড়ী নবারের একজন তহসীলদার অতিজ্য বাহী এই মন্দিরটি নির্মান করেন।

ইতিহাস গবেষকদদের মতে মন্দিরের জাবতীয় ব্যয় নির্বাহ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির করেছিলেন নবাব মুর্শিদকুলি খান।

সিরাজগঞ্জ রবিন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ড. রিফাত-উর-রহমান বলেন, মুর্শিদকুলি খান যখন শাসন করতেন তারি অর্থায়নে একজন জমিদার রামনাথ ভাদুড়ী নির্মান করেছিলেন, সেটা হচ্ছে একদমি ইতিহাস ভিত্তিক একটা তথ্য, অামরা অার কিউ লজিক্যালি ইনভিষ্টিকেট করার চেষ্টা করছি। তবে এখানকার টেরি কোটা খোসে পড়েছে সেগুলোর মেরামতের ব্যবস্থা করা হয়নি।

একটি উচুঁ বেদির উপর নির্মিত ৩ তলা বিশিষ্ট এ মন্দিরটি স্থানীয় ভাবে দোল মঞ্চ নামে পরিচিত। মন্দিরটির দৈর্ঘ্য ১৫.০৪ মিটার, এবং উচ্চতা ১৩.২৫ মিটার।

নীচতলায় ২ টি বারান্দা বেষ্টিত একটি গর্ভগৃহ অাছে। ইট,চুন,সুরকির মসলা দিয়ে তৈরী এই মন্দিরটি, বারান্দার বাইরের দিকে ৭ টি এবং ভিতরের দিকে ৫ টি খিলান প্রবেশ পথ রয়েছে। বাংলাদেশের ৩ টি নবরত্ন মন্দিরের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড়। বাংলাদেশ তথা দেশের বাহিরে থেকেও দর্শনার্থীরা এখানে এসে মুগ্ধ হন এ মন্দিরের নির্মান শৈলী দেখে।

স্থানীয়রা বলেন, বহিরাগত লোকজনেরা অাসে, বিদেশ থেকে লোকজনেরা অাসে এবং ঈদ ও পূজা উপলক্ষেও অনেক লোকজন অাসে এই মন্দির দেখতে। স্থানীয়রা অারোও বলেন, ছোট ছোট বিলডিং ছিলো সাইডে, পাশেই পুকুরে নৌকা বাধা ছিলো, সেটা নাকি সোনার নৌকা ছিলো সিকল দিয়ে বাধা ছিলো।

প্রায় ২৫০ বছরের প্রাচীন এ মন্দির চত্তরে রয়েছে বিশাল শিব মন্দির, বাংলা মন্দির, শিবমটসহ মোট ৪ টি স্থাপনা।

যার ইট ও টেরা কুটির উপরে রয়েছে দেব দেবির ছবি সম্বলিত অর্পূব নকশা অবাক করে ঐতিহাসিকদের।

তবে বার বার সংস্কারের কারনে মুছে গেছে অনেক নির্দশন।

অাবার কেউ বলছেন, মন্দিরের যে ঐতিহাসিক গুরুত্ব সে অনুযায়ী রক্ষনা বেক্ষন বা কোন ব্যবস্থা নেয়নি সরকার। তবে স্থানীয়দের মতে সুন্দর্য বর্ধন কর হলে এ মন্দিরটি হতে পারে দেশের অন্যতম অাকর্ষনীয় পরর্যটন কেন্দ্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here