স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর ফেসবুক লাইভ!

[ad_1]

স্ত্রীকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে হত্যার পর রক্তমাখা হাতেই ফেসবুকে লাইভ করেছে জার্মানির আবু মারওয়ান নামে এক ব্যক্তি। মারওয়ান সিরীয় নাগরিক।

তিনি যুদ্ধ-বিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে জার্মানিতে পাড়ি জমিয়েছেন। ৩৭ বছর বয়সী স্ত্রী তার কথার অবাধ্য ছিলেন। এ অপরাধে ছোট মেয়ের সামনেই স্ত্রীকে কোপান তিনি।

এরপর নারকীয় ঘটনার বিবরণ দিয়ে রক্তমাখা হাতেই ফেসবুক লাইভ করেন তিনি। লাইভের ক্যাপশনে লিখেছেন, স্বামীকে বিরক্ত করলে এরকম শাস্তি পাওয়া উচিত। যে সব নারী স্বামীদের বিরক্ত করেন, তাদের শিক্ষা দিতেই এ লাইভ ভিডিও।

ভিডিওটি শেয়ার করার জন্য ফেসবুক ব্যবহারকারীদের আহ্বানও জানান তিনি। এ কাজে ছেলেকেও দলে টেনে নিয়েছেন। বাবার প্রতি তীব্র আনুগত্য থেকে ছেলেও ভিডিও শেয়ারের আহ্বান জানিয়েছে।

সিরিয়ার বাসিন্দা আবু মারওয়ান দীর্ঘদিন ধরে জার্মানিতে শরণার্থী হিসেবে বসবাস করে আসছেন। দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে ওই দম্পতির। অনেকদিন আগে স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় মারওয়ানের। আদালতের নির্দেশে তিন ছেলেমেয়েই সাবেক স্ত্রীর জিম্মায় ছিল।

মাঝে মাঝেই স্ত্রীকে বিরক্ত করতো মারওয়ান। বেশ কিছুদিন ধরে নতুন আবদার শুরু করেছিল। বিচ্ছেদ ভুলে গিয়ে ফের একসঙ্গে থাকার কথা বলে। তবে সেই আবেদনে মন গলেনি স্ত্রীর। তাতেই রেগে যায় মারওয়ান। ছেলেকে সাক্ষী রেখে ছুরি দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে দেয় স্ত্রীর গলা। পুরো দৃশ্য দেখে পুলিশকে খবর দেয় তাদের মেয়ে। পুলিশ ইতোমধ্যে আবু মারওয়ানকে গ্রেফতার করেছে।

ভাইরাল হয়ে গেছে নারকীয় ভিডিওটি। যেখানে দেখা যাচ্ছে মধ্যবয়স্ক আবু মারওয়ান রক্ত মেখে দাঁড়িয়ে আছে। বাম হাত রক্তাক্ত। সারা মুখে রক্তের দাগ।

[ad_2]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here